রুশদির ভেন্টিলেটর সরিয়ে নেয়া হয়েছে, কথা বলতে পারছেন

Anweshan Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৪ অগাস্ট ২০২২, ১৪:২০ পিএম


রুশদির ভেন্টিলেটর সরিয়ে নেয়া হয়েছে, কথা বলতে পারছেন

সালমান রুশদি

নিউ ইয়র্কে ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত  স্যাটানিক ভার্সেসের লেখক সালমান রুশদির ভেন্টিলেটর সরানো হয়েছে। এখন তিনি কিছুটা কথা বলতে পারছেন বলে মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলোকে জানিয়েছেন তাঁর এজেন্ট অ্যান্ড্রু ওয়াইলি।

 

বুকারজয়ী লেখক সালমান রুশদিকে হত্যার উদ্দেশ্যে শুক্রবার (১২ আগস্ট) হামলা চালায় হাদী মাতার নামের একজন শিয়া মতালম্বী উগ্রপন্থী মুসলমান। এ হামলায় গুরতর আহত হন তিনি। খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে হেলিকপ্টার যোগে স্থানীয় এক হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালে নেয়ার পর  আশঙ্কাজনক অবস্থায় লাইফ সাপোর্টে রাখা হয় রুশদীকে। সেসময় এজেন্ট অ্যান্ড্রু উইলি জানিয়েছিলেন, "সালমান রুশদি সম্ভবত এক চোখ হারাতে যাচ্ছেন, হাতের স্নায়ু মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আর তার লিভারে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে এবং সেটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।" 

যদিও তার সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কোন তথ্য এখনো জানানো হয়নি।

কিন্তু অনেক লেখক ও পণ্ডিত ব্যক্তিরা টুইট করে মিস্টার রুশদী কথা বলতে পারছেন জেনে স্বস্তি প্রকাশ করছেন।

উল্লেখ্য, ভারতীয় বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ ঔপন্যাসিক সালমান রুশদি ১৯৮১ সালে ‘মিডনাইট’স চিলড্রেন’ লিখে খ্যাতি অর্জন করেন। ১৯৮৮ সালে প্রকাশিত তাঁর চতুর্থ বই ‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’ লেখার পর উগ্রপন্থী মুসলমানদের হামলার আশঙ্কায় দীর্ঘদিন পালিয়ে থাকতে হয় তাঁকে। এই উপন্যাসটিতে ইসলাম ধর্মকে অবমাননা করা হয়েছে বলে হুজুগ তোলে উগ্রপন্থী মুসলমানরা। ১৯৮৯ সালে ইরানের প্রয়াত উগ্রপন্থী নেতা আয়াতুল্লাহ খোমেনি রুশদির হত্যার ফতোয়া জারি করে।  যে কেউ রুশদিকে হত্যা করবে তার জন্য তিন মিলিয়নের বেশি মার্কিন ডলারের পুরস্কারের ঘোষণা দেয় ইরানের উগ্রপন্থী ওই নেতা।

১৬০ বার পঠিত


Link copied