মৌলবাদের ভয়াবহ আতুড়ঘর এখন জন্মভূমি নড়াইল

Anweshan Desk

সংখ্যালঘু নির্যাতন ডেস্ক

০১ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩:২১ পিএম


মৌলবাদের ভয়াবহ আতুড়ঘর এখন জন্মভূমি নড়াইল

আক্রান্ত বাউলের নাম হারেছ ফকির

আউল বাউল দরবেশ আর দরগা খানকার মাধ্যমে এই উপমহাদেশে মুসলিমদের আগমন ঘটে। এ কারণে বারো আউলিয়া অথবা ৩৬০ আউলিয়ার দেশ হিসেবে বাংলাদেশ পরিচিত। এদেশের আনাচেকানাচে প্রাচীনকাল থেকে শত সহস্র দরগা খানাকায় সুফি সাধকরা আধ্যত্ববাদী গুরুবাদী নিগুঢ় সুফি সাধনায় রত থেকেছেন।

লালন হাসন করিমের দেশে আজ ভয়াবহ মৌলবাদ রাজনৈতিক প্রচ্ছন্নতায় শেকড় গেড়ে বসেছে। যত্রতত্র নিরীহ নিরহংকার বাউলদের নিয়ে যাচ্ছেতাই কৌতুক করা হচ্ছে, অত্যাচার করা হচ্ছে অথচ দেখার কেউ নেই! আজ অবধি কোন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি তো দেখা মেলেনি বরং সেই সব গোঁড়াদের পালের গোদা কে নিয়ে কিছৃ বললে তারই ভাগ্যে জুটছে জামিনবিহীন নিদারুণ কারাবাস! এই দেশ, এই স্বাধিনতা, মূল্যবোধ এগুলো এখন তথাকথিত রূপকথা ছাড়া অবশিষ্ট কিছু আছে কি?

পুনশ্চ-নড়াইলের কালিয়ার নোয়াগ্রাম গ্রামে জনৈক কুখ্যাত রাজাকারের নেতৃত্বে ও প্রচ্ছন্ন মদদে একদল জঙ্গী একজন বাউল (হারেছ ফকির) এর দরগাহর সমস্ত বাদ্যযন্ত্র ভাঙচুর সহ তাঁকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে। এই পরিবার এখনও ভয়ে রাস্তায় দিনাতিপাত করছে তাদের নিরাপত্তা দাবী করছি।

সেই সাথে সরকারের কাছে অনুরোধ করি, আমরা যারা সংখ্যালঘু কতিপয় বাঙ্গালি সংস্কৃতিমনা লোক এদেশে বাস করি, আমাদের জন্য অন্তত দেশের একটি বিশেষ অঞ্চল ঘোষণা করা হোক, আমরা এই হুরখোর স্বর্গলোভী, ধর্মব্যাপারিদের থেকে রেহাই চাই। একটু সাধারণভাবে স্বাভাবিক জীবন নিয়ে পরিবারসহ বেঁচে থাকার অধিকার চাই।

পুনঃ পুনশ্চঃ কোন বিচার চাইনা। কারণ এ রাষ্ট্র, এ সরকার, এইসব জঙ্গিবাদীদের কাছে, রাজাকারদের কাছে, ভোটের হিসেবে বিক্রী হয়ে গেছে, তাই মেরুদণ্ডবিহীন বঙ্গবন্ধুর আদর্শহীন সরকারের কাছে বিচার চাওয়া অরণ্যে রোদন মনে করি।

৭০১ বার পঠিত


Link copied