অবশেষে ইসলাম ধর্ম অবমাননার অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার ঝুমন দাশ

Anweshan Desk

সংখ্যালঘু নির্যাতন ডেস্ক

৩১ অগাস্ট ২০২২, ১৬:৫৬ পিএম


অবশেষে ইসলাম ধর্ম অবমাননার অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার ঝুমন দাশ

প্রাচীন নবরত্ন মন্দিরের গেটে জামে মসজিদের দানবাক্স

অবশেষে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ফেসবুকে করা  পোস্টের ধর্ম অবমাননার অভিযোগ দেখিয়ে গ্রেফতার করা হলো ঝুমন দাশ আপনকে। 

শাল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিনুল ইসলামকে একাধিকবার ফোন করলে এইমাত্র তিনি জানান, সুনির্দিষ্টভাবে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার পোস্টকে ঘিরে যে কোন সময় অপ্রীতিকর পরিস্থিতি ঘটতে পারে বলে প্রশাসন আশা করছে।

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে নোয়াগাঁওয়ের ঝুমন দাশের বাড়ি থেকে তাকে শাল্লা থানায় নিয়ে যায় পুলিশের একটি দল। ফেসবুকে ধর্ম অবমাননাকর পোস্ট দিয়েছেন, এমন অভিযোগ তুলে ঝুমনকে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। প্রথমে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত তাকে থানাতে আটকে রাখা হয় জিজ্ঞাসাবাদ করার কথা বলে। প্রাথমিক অবস্থায় ঝুমনের স্ত্রী সুইটি রাণী দাশ দাবী করেন যে ধর্ম অবমাননাকর কোনো পোস্ট ঝুমন দেননি, বরং তাকে ফের হয়রানি করতেই আবারও তুলে নিয়েছে পুলিশ এবং ঝুমন দাশ নিজেও দাবী করেন যে তিনি ঐ রকম কোনো পোস্ট দিয়েছেন-কী দেননি তা তিনি মনে করতে পারছেন না।

পরবর্তীতে পুলিশের তরফ থেকে জানা যায়, জিজ্ঞাসাবাদে ঝুমন দাশ এ পোস্টটি করেছেন বলে প্রশাসনের নিকট দায় স্বীকার করেছেন। তাই তাকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। আগামীকাল তাকে কোর্টে চালান করা হবে। তবে পুলিশ দাবী করেন যে পোস্টটি তিনি ডিলিট করে দিয়েছেন বলে এখন তার ফেসবুক টাইমলাইনে সেটি নেই। পোস্টটি ডিলিট হওয়ায় আইটি বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া হবে।

ঝুমন দাশের করা ফেসবুক পোস্টের লেখাটি অন্বেষণ নিউজের হাতে এসেছে। নিম্নে তার ফেসবুক পোস্টের লেখাটি হুবহু তুলে ধরা হলো।

"অসভ্যতা ও বর্বরতার এইটা একটা নজির সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুলে ১৪ শতকের প্রাচীন নবরত্ন মন্দিরের গেটে মসজিদের এই দানবক্স দেখে মেজাজ খারাপ হয়ে গেলো 

কোনো মসজিদের প্রধান গেটে কোন মন্দিরের দান বক্স লাগানোর কল্পনাও কেউ করতে পারবে না। করলে ধর্ম অবমাননার মামলা খেয়ে কারাগারে থাকতে হবে অনেকদিন।

তা হলে এটা লাগানোর সাহস এরা কি ভাবে করে!! ঐ মন্দিরের আশে পাশের হি*ন্দুদের এটা অপসারণ করার বিন্দু মাত্র সাহস বা প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করার ক্ষমতা নেই বলেও আশ্চর্য হয়েছি!

মন্দিরের গেটে মসজিদের দানবক্স ও ইসলামী বয়ান লাগানো স্রেফ গুন্ডামী, সংখ্যাগুরুর ইত্রামী।"

ফেসবুক পোস্টের তারিখ রবিবার (আগস্ট ২৮, ২০২২)

২১৪৭ বার পঠিত


Link copied