চন্দনাইশে স্কুল সভাপতি-আ' লীগ নেতাদের হুমকিতে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন হিন্দু প্রধান শিক্ষক

Anweshan Desk

জাতীয় ডেস্ক

২৭ জুলাই ২০২২, ১৮:১০ পিএম


চন্দনাইশে স্কুল সভাপতি-আ' লীগ নেতাদের হুমকিতে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন হিন্দু প্রধান শিক্ষক

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার সাতবাড়িয়া খাঁনদীঘি উচ্চ বিদ্যালয়ের স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা শাখাওয়াত হোসেন শিবলী ও তাঁর অনুসারী আওয়ামী লীগ নেতাদের হুমকিতে স্কুল ছেড়ে পালিয়ে জীবন-যাপন করতে বাধ্য হচ্ছেন ঐ স্কুলের হিন্দু ধর্মালম্বী প্রধান শিক্ষক  মিলটন কান্তি বিশ্বাস।

 

ভিক্টিম মিলটন কান্তি বিশ্বাস অন্বেষণ নিউজকে জানান, "স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনের সময় বর্তমান সভাপতি ওনার পক্ষে কাজ করার জন্য বলছিল।আমি বললাম আমি প্রধান শিক্ষক আমি কারো পক্ষে কাজ করতে পারবো না। ওনি নির্বাচনে জয়লাভ করার পর শিক্ষকদের নিয়ে মিটিং করে আমাকে গালাগালি হুমকি দেয়া এবং জোড় করে রিজাইন লেটার নিয়ে আমাকে স্কুল থেকে চলে যেতে বলল।আমাকে লেংটা করে গাছের সাথে বেঁধে রাখার হুমকি দেয়।এরপর থেকে সভাপতির গুন্ডা বাহিনি দিয়ে আমাকে হুমকি ও স্কুলে প্রবেশ বন্ধ করে দেয়।আমাকে ইচ্ছামত বরখাস্ত করে।আমার বেতন বন্ধ করে রেখে দিয়েছে।বাকি শিক্ষকদের আমার সাথে যোগাযোগ না করার হুমকি দেয়।আমি আমার চাকরি বাঁচাতে মামলা করেছি।"

তিনি আরো বলেন, "আমি একজন নির্যাতিত প্রধান শিক্ষক।ম্যানেজিং কমিটি আমাকে মামলা তোলার জন্য হুমকিও দিছে।মামলা নাকি ওরা পলিটিকেলি মুভ করবে।আমি নাকি মামলা পাবো না।এমনকি আমার বেতন পর্যন্ত বন্ধ করে দিছে। আমি শিক্ষক,আমি অন্যায়ের কাছে মাথা নত করিনি এবং করবো না।কপালে যা আছে।আমি জাতির বিবেক শিক্ষক হিসেবে বেঁচে থাকতে চাই সবার মাঝে।আমি ম্যানেজিং কমিটি প্রথা বাতিল চাই।আমার ২ মেয়ে ১ ছেলে আমার ৫ মাস ধরে বেতন বন্ধ করে রেখেছে।আমি পরিবার নিয়ে খুবই কষ্টে আছি। এদিকে আমাকে মামলা তোলার জন্য চাপ দিচ্ছে।  আমাকে এবং আমার পরিবারকে বাঁচান।"

এছাড়া, তিনি ন্যায় বিচার পাবার উদ্দেশ্যে উপজেলা শিক্ষা অফিসার,জেলা শিক্ষা অফিসার,বোর্ড,ইউ এনও,জেলা প্রশাসক, স্থানীয় এমপিসহ প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পান নি। উপজেলা এসিল্যান্ড শিক্ষক মিলটন কান্তি বিশ্বাসকে তিন মাসের মধ্যে অন্যস্থানে চলে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। 

গত ১৬ জুলাই  চট্টগ্রাম নগরের চেরাগী পাহাড় মোড়ে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত শিক্ষক মিলটন কান্তি বিশ্বাসের হয়রানি ও নির্যাতনের ঘটনা উল্লেখ করে বলেন, 'চন্দনাইশের খান দিঘিরপাড় উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিলটন কান্তি বিশ্বাসকে স্কুলের পরিচালনা কমিটির সভাপতিসহ আওয়ামী লীগের কিছু নেতা হয়রানি করে চলেছেন। অবিলম্বে এই হয়রানি বন্ধের দাবি জানাচ্ছি।’

উল্লেখ্য, গত কয়েক বছর ধরে পরিকল্পতিভাবে হিন্দু ধর্মালম্বী শিক্ষকদের নানা ছুতায় হয়রানি, নির্যাতন নিপীড়ন করে আসছে একদল উগ্রপন্থী মুসলমান। এর পাশাপাশি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীদেরকেও ধর্মীয় সংখ্যালঘু শিক্ষকদের নির্যাতনে নেতৃত্ব দিতে দেখা যাচ্ছে। মানবাধিকার কর্মীদের আশঙ্কা, এ অবস্থা চলতে থাকলে খুব দ্রুতই ধর্মীয় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের শিক্ষক শূন্য হয়ে যাবে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। 

 

১৭০৪ বার পঠিত

জাতীয় থেকে আরও


Link copied