লালমনিরহাটে তাবলিগে গিয়ে নিখোঁজ মাদ্রাসাছাত্র, শিক্ষকের দাবি ‘জিনের আছর’

Anweshan Desk

জাতীয় ডেস্ক

১৪ জুলাই ২০২২, ২১:৩২ পিএম


লালমনিরহাটে তাবলিগে গিয়ে নিখোঁজ মাদ্রাসাছাত্র, শিক্ষকের দাবি ‘জিনের আছর’

তাবলিগ জামাতে গিয়ে রাব্বিতুল ইসলাম (১৩) নামে এক মাদ্রাসাছাত্র নিখোঁজ হয়েছে। তাকে জীবিত উদ্ধারের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন বাবা-মা, আত্মীয়-স্বজন ও এলাকাবাসী।

 

বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত লালমনিরহাট-বুড়িমারী সড়কের হাতীবান্ধা উপজেলা পরিষদ গেটের সামনে মানববন্ধন করা হয়।

 

নিখোঁজ রাব্বিতুল ইসলাম হাতীবান্ধার সিংগীমারী ইউনিয়নের সিংগীমারী এলাকার রশিদুল ইসলামের ছেলে। সে একই ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সিংগীমারী এলাকার আলিমের ডাঙা হাফিজিয়া মাদ্রাসার সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী। মানববন্ধনে বাবা রশিদুল ইসলাম বলেন, ‘গত ৬ জুলাই গ্রামের কয়েকজন সহপাঠীর সঙ্গে তাবলিগ জামাতে যায় রাব্বিতুল। এরপর থেকে আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তাবলিগ জামাতের মুরব্বি বলেছেন, নদীতে ডুবে নিখোঁজ হয়েছে রাব্বিতুল। কিন্তু এখন পর্যন্ত তার সন্ধান পাইনি আমরা। আমি তাকে জীবিত ফেরত চাই।’

তাবলিগ জামাতের নেতৃত্বদানকারী শিক্ষক রিয়াজুল ইসলাম বলেন, ‘রাব্বিতুল ইসলামের শরীরে আগে থেকেই জিনের আছর ছিল। ৭ জুলাই সকাল ৯টার দিকে তাবলিগের আলোচনা শেষে গোসলের বিরতি দেওয়া হয়। রাব্বিতুলসহ কয়েকজন তিস্তা নদীতে গোসল করতে যায়। এরপর নদীতে ডুবে নিখোঁজ হয়। তার লাশ এখনও পাওয়া যায়নি। বৃহস্পতিবার রাত ১০টার মধ্যে লাশ ভেসে উঠার কথা জানিয়েছেন কবিরাজ। যদি এ সময়ের মধ্যে লাশ ভেসে না ওঠে তাহলে কবিরাজ শুক্রবার ঘটনাস্থলে আসবেন। আমরা লাশ উদ্ধারের চেষ্টা করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘১৩ শিক্ষার্থী, স্থানীয় চার মুরব্বি ও আমিসহ ১৮ জন তিন দিনের জন্য তাবলিগ জামাতে উপজেলার ডাউয়াবাড়ি ইউনিয়নের দুর্গমচর সোহাগের বাজার এলাকার একটি মসজিদে যাই। ঈদের কারণে আমরা একদিন কমিয়ে দ্বিতীয় দিনে ফিরে আসি। কিন্তু দুঃখজনক হলো, রাব্বিতুল নিখোঁজ হয়ে যায়। তাকে ছাড়াই আমরা গ্রামে ফিরে এসেছি।’

হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এরশাদুল আলম বলেন, ‌‘নিখোঁজ মাদ্রাসাছাত্রের পরিবারের অভিযোগ পেয়েছি। ছেলেটি তাবলিগে গিয়ে নিখোঁজ হয়েছে বলে নিশ্চিত হয়েছি আমরা। তদন্ত শুরু করেছি। তার অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।’

১১২৫ বার পঠিত

জাতীয় থেকে আরও


Link copied