মাদ্রাসা থেকে উদ্ধার চোরাই গরু : ৬ স্ত্রীসহ গ্রেপ্তার ১০

Anweshan Desk

Anweshan Desk

২০ জুলাই ২০২৩, ১১:৪৪ এএম


মাদ্রাসা থেকে উদ্ধার চোরাই গরু : ৬ স্ত্রীসহ গ্রেপ্তার ১০

ভোলার বোরহানউদ্দিনে পুলিশ অভিযান চালিয়ে চুরি হওয়া ছয়টি গরু মাদরাসা থেকে উদ্ধার করেছে। এ সময় গরু চোর চক্রের গডফাদারের ছয় স্ত্রীসহ চক্রের ১০ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়.

বুধবার (১৯ জুলাই) দিবাগত রাত ৩টার দিকে চরফ্যাশন আঞ্চলিক মহাসড়কের বোরহানউদ্দিন পৌরসভা ৪ নম্বর ওয়ার্ডে মোহাম্মদিয়া মাদ্রাসায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

এসময় ওই প্রতিষ্ঠানের প্রধান এবং চোর চক্রের গডফাদার নেছারউদ্দিন পালিয়ে গেলেও তার ছয় স্ত্রীসহ ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়। জব্দ করা হয় ছয়টি গরু, একটি মোটরসাইকেল ও একটি পানির পাম্প।

গ্রেফতার ব্যক্তিরা হলেন-উপজেলার গংগাপুর ইউনিয়নের সফিজল ইসলামের ছেলে শাকিল, কুতুবা ইউনিয়নের ইয়ামিন হোসেনের ছেলে মহিউদ্দিন, ভোলার আলী নগর ইউনিয়নের রুহিতা গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে রমজান, আলমগীরের ছেলে মাহাবুবুর রহমান, একই এলাকার রহিমা বেগম, বুশরা বেগম, ফাতেমা বিবি, জাকিয়া আক্তার, ফাহিমা আক্তার ও লিয়া বেগম।

উদ্ধার হওয়া গরুর মালিক দাবিদার পক্ষিয়া ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুস সোহবানের নাতি ইমরান হোসেন বলেন, মঙ্গলবার  (১৮ জুলাই) দিবাগত রাত সাাড়ে ৩টার দিকে আমার নানার তিনটি এবং একই এলাকার আব্দুল বারেকের তিনটি গরু চুরি হয়। এরপর থেকে আমরা গরু খুঁজতে থাকি। গরুর পায়ের চিহ্ন ধরে আমরা খোঁজ করি। এক পর্যায়ে পৌর সভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের আহম্মাদিয়া মাদরাসায় পৌঁছাই। পরে মাদরাসার একটি কক্ষে টিনের ছিদ্র দিয়ে দেখার চেষ্টা করলে এক নারী আমাদের দিকে মরিচের গুড়া ছিটিয়ে বটি নিয়ে তেড়ে আসে। এরপর আমরা পুলিশের শরণাপন্ন হই। পুলিশ অভিযান চালিয়ে চোরাই গরু উদ্ধার করে এবং ১০ জনকে গ্রেফতার করে।

বোরহানউদ্দিন থানার (ওসি তদন্ত) মো. রাজিব হোসেন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার দুপুরে আমরা ওই স্থানে অভিযান পরিচালনা করি। অভিযানে ছয়টি গরু, একটি মোটরসাইকেল, একটি পাম্প মেশিন উদ্ধার করি। এসময় ওই মাদ্রাসার চার শিক্ষার্থী এবং এ চোর চক্রের গডফাদার নেছার উদ্দিনের ছয় স্ত্রীকে আটক করে থানায় নিয়ে আসি। পরে গরুর মালিক থানায় মামলা করলে আটককৃত দশজনকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়।


Link copied