জয়পুরহাটে মসজিদ কমিটির সভাপতির মেয়েকে নিয়ে উধাও ইমাম

Anweshan Desk

অন্বেষণ ডেস্ক

২৫ অগাস্ট ২০২২, ১৩:৪৬ পিএম


জয়পুরহাটে মসজিদ কমিটির সভাপতির মেয়েকে নিয়ে উধাও ইমাম

স্কুল পড়ুয়া মেয়েকে নিয়ে উধাও মসজিদের ইমাম

জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে মসজিদ কমিটির সভাপতির স্কুল পড়ুয়া মেয়েকে নিয়ে ইমাম উধাও হয়ে গিয়েছে বলে খবর পাওয়া যায়। 

উপজেলার ধরঞ্জী ইউনিয়নের উচনা দত্তেরপাড়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটে বলে খবর পাওয়া যায়। ঘটনাটি যখন গোটা এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে তখন উভয় পক্ষের দরকষাকষির মাধ্যমে ২ লক্ষ টাকায় আপোষ মিমাংসার মাধ্যমে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়া হয় বলে জানা যায়। 

উচনা দত্তের পাড়া গ্রামের মজনু মিয়ার পুত্র মাওলানা রুবেল হোসেন (৪০) উক্ত গ্রামের পুরাতন জামে মসজিদে দীর্ঘদিন যাবত ইমামতি করে আসছিলেন। মাওলানা রুবেল হোসেনের (৪০) পূর্বেও একটি বিবাহ আছে এবং সেই ঘরে ২ জন সন্তান আছে বলে খবর পাওয়া যায়।

মসজিদে ইমামতির সূত্র ধরেই মসজিদ কমিটির সভাপতির ৮ম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ের সাথে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলেন মাওলানা রুবেল হোসেন (৪০)। গত ৪ জুন (শুক্রবার) দিবাগত রাতে ঐ ইমাম মেয়েটিকে নিয়ে অজানা উদ্দেশ্যে পাড়ি জমায়। মেয়েকে বাড়িতে দেখতে না পেয়ে পরিবারের লোকজন বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। পরবর্তীতে ৫ জুন (শনিবার) মেয়ের বাবা তার মেয়ের খোঁজ না পেয়ে পাঁচ বিবি থানায় নিজে বাদী হয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন৷ 

থানায় অভিযোগ দায়ের পর ৬ জুন (রবিবার) ভোরে মেয়েটিকে তার বাড়ির সামনে রেখে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত ইমাম। এদিকে উক্ত ঘটনা নিয়ে এলাকায় গুঞ্জন শুরু হলে উভয় পক্ষের লোকজন মিলে একসাথে বসে ২ লক্ষ টাকার দর কষাকষির মাধ্যমে বিষয়টি সমাধান করে বলে জানা যায়৷

এদিকে উক্ত ঘটনায় স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল গনি বলেন, ঘটনাটি লোক মুখে শুনেছি। কিন্তু উক্ত ঘটনায় কোনো পক্ষের লোকই আমার নিকট আসেনি। মিমাংসার বিষয় সম্পর্কে আমি অবগত নই।

মসজিদ কমিটির সভাপতি ও মেয়ের বাবার নিকট মোবাইল ফোনে বিষয়টি সম্পর্ক জানতে চাইলে তিনি বলেন, মেয়ের কথা চিন্তা করে আপোষ করেছি। কত টাকা নিয়ে আপোষ করেছেন বলে জিজ্ঞেস করলে তিনি ফোনটি অন্য জনকে ধরিয়ে দিয়ে বিষয়টি এড়িয়ে যান। 

ঘটনার সত্যতা জানার জন্য অভিযুক্ত ইমাম মাওলানা রুবেল হোসেনের (৪০) বাড়িতে গেলে তাকে খুঁজে পাওয়া যায় নি। পরবর্তীতে তার সাথে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়৷

পাঁচবিবি থানার তদন্তকারী অফিসার ওসি গোলাম সরওয়ার হোসেন জানান, প্রথম দিকে মেয়ের বাবা একটি অভিযোগ করেছিলো। পরে শুনেছি মেয়েটি বাড়ীতে এসেছে। আপোষ মিমাংসার বিষয় সম্পর্কে আমি অবগত নই। 

৬২০ বার পঠিত

জাতীয় থেকে আরও


Link copied