পঞ্চগড়ে পা টেপার কথা বলে ডেকে নিয়ে ছাত্রকে তিন মাস ধরে ধর্ষণ, মাদরাসাশিক্ষক গ্রেফতার

Anweshan Desk

জাতীয় ডেস্ক

১৫ অগাস্ট ২০২২, ২০:২৭ পিএম


পঞ্চগড়ে পা টেপার কথা বলে ডেকে নিয়ে ছাত্রকে তিন মাস ধরে ধর্ষণ, মাদরাসাশিক্ষক গ্রেফতার

ধর্ষক মাদ্রাসা শিক্ষক আব্দুর রহিম

 পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় পা টেপার কথা বলে ডেকে নিয়ে এক মাদরাসাছাত্রকে (১২) ধর্ষণের অভিযোগে আব্দুর রহিম (৩৮) নামে এক শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

 

শনিবার (১৩ আগস্ট) দুপুরে দিনাজপুরের খানসামা উপজেলা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। একই দিন বিকেলে পঞ্চগড়ের বোদা থানা পুলিশের হাতে তাকে হস্তান্তর করে র‍্যাব। রোববার (১৪ আগস্ট) সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়। এর আগে গত ২৬ জুলাই (মঙ্গলবার) ধর্ষণের শিকার মাদরাসাছাত্রের বাবা বাদী হয়ে বোদা থানায় ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।

অভিযুক্ত মাদ্রাসা শিক্ষক আব্দুর রহিম দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার সনকা কাজল গ্রামের মৃত মনজু হোসেনের ছেলে। এ বিষয়টি সময় সংবাদকে নিশ্চিত করেছেন বোদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুজয় কুমার রায়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ভুক্তভোগী ওই ছাত্র পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার চন্দনবাড়ী ইউনিয়নের চন্দনবাড়ী রহমানিয়া দারুচ্ছুন্নাত হাফিজিয়া মাদরাসায় এতিমখানা ও লিল্লাহ বোর্ডিং থেকে পড়াশোনা করত।ওই মাদরাসাশিক্ষক আব্দুর রহিম তাকে কক্ষে ডেকে নিয়ে পা টিপে দেয়ার কথা বলে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে গত ২/৩ মাস ধরে ধর্ষণ করে আসছিল। ঘটনার পর সে ভয়ে বিষয়টি কাউকে জানায়নি। গত ২২ জুলাই (শুক্রবার) ভোরে শিক্ষক আব্দুর রহিম পা টিপে নেয়ার কথা বলে কৌশলে ওই ছাত্রকে আবারও কক্ষে ডেকে নেয়। এ সময়ও ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে। এর পর ব্যথায় কিছুটা অসুস্থবোধ করতে শুরু করে ওই ছাত্র। এরপর গত ২৫ জুলাই (সোমবার) ওই ছাত্রের বাবা মাদরাসায় গেলে তাকে সবকিছু খুলে বলে। ছাত্রের বাবা বিষয়টি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের অবহিত করে রাতেই বোদা থানায় লিখিত অভিযোগ করলে পুলিশ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করে। এদিকে অভিযোগ উঠলে ওই শিক্ষক আত্মগোপনে চলে যান।

বোদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুজয় কুমার বলেন, মাদরাসাশিক্ষক আত্মগোপনে থাকায় পুলিশের পাশাপাশি র‍্যাব অভিযান পরিচালনা শুরু করে। একপর্যায়ে শনিবার (১৩ আগস্ট) খানসামা থেকে তাকে আটক করে বিকেলে বোদা থানায় হস্তান্তর করে র‍্যাব। তার বিরুদ্ধে বোদা থানায় মামলা থাকায় রোববার (১৪ আগস্ট) সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

৩১৫২ বার পঠিত

জাতীয় থেকে আরও


Link copied