গাইবান্ধায় দুই সম্পাদকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

Anweshan Desk

মত প্রকাশের স্বাধীনতা ডেস্ক

২২ জুন ২০২২, ১৫:১৩ পিএম


গাইবান্ধায় দুই সম্পাদকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

'মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর' তথ্য দিয়ে সংবাদ পরিবেশনের অভিযোগে গাইবান্ধার স্থানীয় দৈনিক মাধুকরের সম্পাদক কে এম রেজাউল হক ও দৈনিক জনসংকেত পত্রিকার সম্পাদক দীপক কুমার পালের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

 

মঙ্গলবার (২১ জুন) দুপুরে রংপুর সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে মামলাটি করেন গাইবান্ধা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক জাভেদ হোসেন।  

মামলার পর আদালতের বিচারক ড.আব্দুল মজিদ মামলাটি আমলে নিয়ে গাইবান্ধা সদর থানাকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার বাদী জাভেদ হোসেন অনলাইন নিউজ পোর্টাল ঢাকা টাইমসের জেলা প্রতিনিধি ও প্রেসক্লাব গাইবান্ধার সাধারণ সম্পাদক।  

আদালতে করা মামলার আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, প্রেসক্লাব গাইবান্ধার সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক জাভেদ হোসেন ও সিনিয়র সহসভাপতি সাংবাদিক রবিন সেন এর নামে ২৪ মে দৈনিক মাধুকর ও দৈনিক জনসংকেত পত্রিকায় জনৈক ব্যক্তিকে হুমকি দিয়েছি বলে যে নিউজ প্রকাশ করা হয়েছে তাতে প্রেসক্লাব গাইবান্ধার সাধারণ সম্পাদক ও সিনিয়র সহসভাপতির মানহানি হয়েছে এবং তার সুনাম ক্ষুণ্ণ হয়েছে। জাভেদ হোসেন একজন গণমাধ্যমকর্মী। এ ধরনের মিথ্যা ও ভিত্তিহীন নিউজ প্রকাশ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশ করে গুরুতর অপরাধ করেছেন এবং অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে মর্মে মামলার আবেদনে উল্লেখ করা হয়।

অভিযোগ অস্বীকার করে মামলার বিবাদী দীপক কুমার পাল বলেন, একটি সংবাদ সম্মেলন ও হুমকির ঘটনায় প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের জেরে ক্ষিপ্ত হয় জাভেদ। ওই সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগীর (ভিকটিম) ছবি ফেসবুকে পোস্ট করে স্ট্যাটাস দেওয়াসহ বিভিন্ন কমেন্টস (মন্তব্য) করে জাভেদ। জাভেদের এমন পোস্ট-মন্তব্য সাংবাদিকতার নীতি বহির্ভূত বলে মনে করি।

 

তিনি জানান, জাভেদের হুমকির ঘটনায় গাইবান্ধা প্রেসক্লাবে আলোচনা করে সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। এছাড়া ঘটনাটি প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশের সিদ্ধান্ত নেয় সবাই। এটি অনেক পত্রিকা ও অনলাইনে প্রকাশিত হয়। মূলত এই মামলা ঈর্ষান্বিত ও হয়রানির উদ্দেশ্যে করা হয়েছে।  

 

এদিকে, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে সাংবাদিকের মামলার বিষয়টি স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের মধে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ও উদ্বেগের সৃষ্টি করেছে।  

৯৫ বার পঠিত

মত প্রকাশের স্বাধীনতা থেকে আরও


Link copied