কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে কুরআন রাখা সেই ইকবালের সাজা ১৬ মাস

Anweshan Desk

Anweshan Desk

০২ মার্চ ২০২৩, ১৭:১৩ পিএম


কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে কুরআন রাখা সেই ইকবালের সাজা ১৬ মাস

কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে কোরআন রেখে সাম্প্রদায়িক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির ঘটনায় দায়ের করা মামলার প্রধান আসামি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেনকে ১৬ মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন ঢাকার একটি আদালত।

২০২১ সালের ১৩ অক্টোবরের ওই ঘটনায় দেশের বিভিন্ন থানায় তার বিরুদ্ধে আরও ১০টি মামলা হয়। সিসিটিভি ফুটেজে ইকবালকে পূজামণ্ডপে কোরআন রেখে গদা কাঁধে নিয়ে হেঁটে যেতে দেখা যায়। ৩০ বছর বয়সী ইকবাল কুমিল্লা শহরের মুরাদপুর-লস্করপুকুর এলাকার নূর আহম্মদ আলমের ছেলে। কক্সবাজারের সুগন্ধা পয়েন্ট থেকে ২১ অক্টোবর ইকবালকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মোহাম্মদ ইকবালের সাজা ঘোষণা হওয়া এই মামলাটি গাজীপুরের টঙ্গী পূর্ব থানায় দায়ের হয়েছিল। অপরাধের কথা স্বীকার করে নেওয়ার পর আজ তার বিরুদ্ধে সাজা ঘোষণা করেন ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক এএম জুলফিকার হায়েত।

এই মামলার বাদী টঙ্গী পূর্ব থানার এসআই রাজীব হোসেনসহ ৫ জন সাক্ষ্য দেন। ইকবাল হোসেনের পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না বলে আদালত তার কাছে জানতে চান, সাক্ষীদের জেরা করবেন কি না? তখন ইকবাল বলেন, ‘আমি আর কী জেরা করবো, স্যার? আমি আমার দোষ স্বীকার করছি। আমি অনুতপ্ত। আমি আর অপরাধ করবো না।’ এরপর আদালত তাকে দোষী সাব্যস্ত করে এক বছর চার মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

সরকারি কৌঁসুলি নজরুল ইসলাম শামীম বলেন, পূজা মণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখা ও ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ইকবাল তার আইনজীবীর মাধ্যমে আবেদন জমা দিয়েছিলেন। আসামির উপস্থিতিতে আজ সাজা ঘোষণা করা হয়।

অন্য মামলায় পরোয়ানা না থাকলে আদালত তাকে মুক্তি দিতে কারা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন। ১৬ মাস কারাভোগ করছেন বলে উল্লেখ করেছেন আদালত।

এর পূর্বে  এই মামলার আরেক আসামি রোকন মিয়াও দোষ স্বীকার করেন এবং আদালত তার কারাভোগকেই সাজা হিসেবে প্রদান করে তাকে মুক্তি দেন৷

মত প্রকাশের স্বাধীনতা থেকে আরও


Link copied