সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে গলায় গামছা পেচিয়ে প্রতিবন্ধী হিন্দু দোকান কর্মচারীকে হত্যা

Anweshan Desk

জাতীয় ডেস্ক

২৫ জুলাই ২০২২, ০১:১৯ এএম


সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে গলায় গামছা পেচিয়ে  প্রতিবন্ধী হিন্দু দোকান কর্মচারীকে হত্যা

বাকী না দেওয়ায় ছুতায় গলায় গামছা পেচিয়ে  সজল বিশ্বাস (৩৮) নামে এক হিন্দু দোকান কর্মচারীকে শ্বাসরোধ করে নির্মমভাবে হত্যা করেছে পাঁচ মুসলমান সন্ত্রাসী। গত বুধবার (২০ জুলাই) রাতে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার ঘিলাছড়া ইউনিয়নে এ ঘটনাটি ঘটেছে। 

 

 এ ঘটনায় জড়িত ৫ মুসলমান সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে ফেঞ্চুগঞ্জ থানা পুলিশ। আটককৃতরা হলেন- উপজেলার ঘিলাছড়ার ইউনিয়নের পূর্ব যুধিষ্ঠিপুর (ঘাটেরবাজার) এলাকার মজম্মিল আলীর ছেলে আতিক (২৫), একই গ্রামের রহমত আলীর ছেলে দিপু (২১), মধ্য যুধিষ্ঠিপুরের কামাল মিয়ার ছেলে জুবেল (১৭), মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা গ্রামের মৃত দছির আলীর ছেলে শাকিল (১৯) ও মিয়াধন মিয়ার ছেলে সুমন আহমেদ (২২)।

স্থানীয় সূত্র থেকে জানা গেছে, সজল বিশ্বাস কুলাউড়া উপজেলার কৃষ্ণপুর গ্রামের দয়াময় বিশ্বাসের ছেলে। ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার ঘিলাছড়া গ্রামের ঋষিকেশ নামে এক ব্যক্তির মুদি দোকানে ২০ বছর ধরে কর্মচারী হিসেবে কাজ করেন তিনি। রাতে দোকানেই ঘুমাতেন সজল। শারীরিক প্রতিবন্ধীও ছিলেন তিনি।  বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে হঠাৎ চিৎকার-চেঁচামেচির শব্দে আশপাশের ব্যবসায়ী ও স্থানীয় বাসিন্দারা জেগে ওঠেন। পরে তাঁরা নিশী বাবুর দোকানটি খোলা দেখে সেখানে গিয়ে দেখেন গলায় গামছা পেঁচানো অবস্থায় সজল বিশ্বাসের লাশ পড়ে আছে। হত্যা শেষে দোকান থেকে টাকাও লুট করে নিয়ে যায় ঘাতকরা।  খবর পেয়ে পুলিশ ঐ রাতেই ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে।

ফেঞ্চুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাফায়েত হোসেন বলেন, সজল বিশ্বাস হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ ইতিমধ্যে হাকালুকি হাওর এলাকা থেকে পাঁচজনকে আটক করেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার বিষয়ে পুলিশের কাছে  স্বীকার করেছে গ্রেফতার হওয়া আসামীরা। 

 

৪৫৫ বার পঠিত

ধর্মীয় সংখ্যালঘু নির্যাতন থেকে আরও


Link copied