নেত্রকোণায় আদিবাসী শিক্ষিকার ওপর হামলা

Anweshan Desk

জাতীয় ডেস্ক

২৪ জুলাই ২০২২, ১৫:৪৩ পিএম


নেত্রকোণায় আদিবাসী শিক্ষিকার ওপর হামলা

নেত্রকোনায় নিজ বাড়িতে আদিবাসী একজন শিক্ষক হামলার শিকার হয়েছেন। এক মুসলমান তরুণ হঠাৎ করে তাঁর ঘরে ঢুকে মালামাল ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় বাধা দিতে মারধরসহ গলাচেপে তাকে ধাক্কা দেওয়া হয়। এতে জ্ঞান হারান তিনি। লুট করা হয় মোবাইল ফোনসহ নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার। বর্তমানে ওই শিক্ষক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

 

শনিবার (২৩ জুলাই) সকাল সাড়ে সাতটার দিকে জেলার কলমাকান্দা উপজেলার রংছাতি ইউনিয়নের বরুয়াকোনা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত শিক্ষকের নাম প্রীতিলতা কুবি (৫৯)। তিনি উপজেলার বরুয়াকোনা সাধু ফেডারিক উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন।

অভিযুক্ত তরুণের নাম মো. সাব্বির (১৯)। সে একই ইউনিয়নের চিকুনটুপ গ্রামের বাসিন্দা। হাসপাতালে ভর্তি অবস্থায় শিক্ষক প্রীতিলতা জানান, তরুণটি আমার প্রতিবেশী। তার মা অন্য বাড়ির মতো আমাদের বাড়িতেও কাজ করতো। এ দিন সকালে হঠাৎ সে ঘরে ঢুকে টাকাসহ ঘরে থাকা মালামাল নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এতে বাধা দিলে সে ক্ষিপ্ত হয়ে কিল-ঘুষি ও গলায় চেপে ধরে ধাক্কা দেয়। এ সময় ছিটকে গিয়ে ঘরে থাকা একটি ওয়ারড্রপের ওপর পড়ে জ্ঞান হারাই। পরে তরুণটি ঘরে থাকা মোবাইল ফোন, স্বর্ণালঙ্কারসহ টাকা-পয়সা নিয়ে পালিয়ে যায়। কিছুসময় পর স্বামী বাড়ি ফিরে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করেন। এ বিষয়ে থানায় মামলা করবেন বলেও জানান তিনি।

কলমাকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক ডা. সুমন পাল বলেন, প্রীতিলতাকে হাসপাতালে নিয়ে এলে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ভর্তি করা হয়েছে।

হামলা প্রসঙ্গে ভিকটিমের ছেলে হিমেল কুবি বলেন, ‘জানামতে আমাদের সাথে কোন শত্রুতা নেই; কখনো ঝগড়াও করতে দেখা যায়নি।’ 

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. আতাউল হক গণি বলেন, সাব্বির এর আগেও এ ধরণের একাধিক ঘটনা এলাকায় ঘটিয়েছে।  

কলমাকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ খান বলেন, শিক্ষকের ওপর হামলার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে। 

১০৭২ বার পঠিত

ধর্মীয় সংখ্যালঘু নির্যাতন থেকে আরও


Link copied