রাঙ্গুনিয়ার চন্দ্রঘোনায় আ. লীগ নেতার নেতৃত্বে মন্দিরে হামলা, প্রতিমা ভাঙচুর

Anweshan Desk

জাতীয় ডেস্ক

১৯ জুলাই ২০২২, ১৩:৫১ পিএম


রাঙ্গুনিয়ার চন্দ্রঘোনায়  আ. লীগ নেতার নেতৃত্বে মন্দিরে হামলা, প্রতিমা ভাঙচুর

এবার রাঙ্গামাটি-রাঙ্গুনিয়া সীমান্তের চন্দ্রঘোনায় স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতা এবং কমিউনিস্ট পার্টির রাজনীতির সাথে জড়িত তাঁর বড়ভাইয়ের  নেতৃত্বে  একটি মন্দিরে হামলা ও প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। অভিযুক্ত হামলাকারীরা হলেন,  জালাল উদ্দীন, যিনি স্থানীয় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং তাঁর বড় ভাইর নাম ফরিদ উদ্দীন কমিউনিস্ট পার্টির স্থানীয় নেতা।

 

গত ১৭ জুলাই রাঙ্গুনিয়া উপজেলার চন্দ্রঘোনা মিশন এলাকায় এই মন্দিরে হামলা ও প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। 

এ ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে সনাতন যুব পরিষদ রাঙ্গামাটি জেলা কমিটি।  সোমবার (১৮ জুলাই) রাঙ্গামাটি শহরের পৌরসভা প্রাঙ্গণ থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে এসে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়। 

সনাতন যুব পরিষদ রাঙ্গামাটি জেলা সভাপতি অজিত শীলের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন- বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ রাঙ্গামাটি জেলা কমিটির সভাপতি অমর কুমার দে, রাঙ্গামাটি ইসকন মন্দিরের অধ্যক্ষ নিতাই নূপুর দাশ, সনাতন যুব পরিষদ রাঙ্গামাটির সাবেক সভাপতি জগন্নাথ ভদ্র, সনাতন যুব পরিষদ রাঙ্গামাটি পৌর কমিটির সভাপতি উজ্জ্বল দে প্রমুখ।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশকে সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রে পরিণত করতে মৌলবাদী গোষ্ঠী উঠেপড়ে লেগেছে। এখনই ব্যবস্থা না নিলে আগামী দিনগুলোতে সরকারও প্রশ্নবিদ্ধ হবে এবং হুমকির মুখে পড়বে। বক্তারা বলেন, মন্দিরে হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে যদি ব্যবস্থা নিতে দেরি হয় তাহলে রাঙ্গামাটি সনাতন যুব পরিষদ আরো কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা দেবে।
বক্তারা বলেন, রাঙ্গামাটি-রাঙ্গুনিয়া সীমান্তের চন্দ্রঘোনায় মন্দির হামলাকারী আর কেউ নন, তিনি হচ্ছেন আওয়ামী লীগের ইউনিয়ন সাধারণ সম্পাদক ও তার বড় ভাই, যিনি কমিউনিস্ট পার্টির সঙ্গে জড়িত। মৌলবাদী গোষ্ঠীর সঙ্গে হাত মিলিয়ে আওয়ামী লীগের কিছু কুচক্রী মহল হিন্দুদের জায়গা দখল করে হিন্দুদের দেশত্যাগে বাধ্য করছে।

বক্তারা অচিরেই এই সকল হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সরকারের কাছে দাবী জানান।

৭৩৫ বার পঠিত

ধর্মীয় সংখ্যালঘু নির্যাতন থেকে আরও


Link copied