পীরগঞ্জে মন্দিরের জমি দখলের চেষ্টা, সন্ত্রাসী হামলা ও প্রতিমা ভাংচুর

Anweshan Desk

ধর্মীয় সংখ্যালঘু নির্যাতন ডেস্ক

১৯ জুন ২০২২, ১৪:৫৪ পিএম


পীরগঞ্জে মন্দিরের  জমি দখলের চেষ্টা, সন্ত্রাসী হামলা ও প্রতিমা ভাংচুর

শ্রী শ্রী ভবানী ঠাকুরানী মন্দিরে

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় একদল মুসলমান ভুমিদস্যু মন্দিরের জমি দখল করে ট্রাক্টর দিয়ে জমি চাষ শুরু করলে,  ভুক্তভোগীদের পক্ষ থেকে বাঁধা দেয়ার চেষ্টা করলে তাঁদের উপরে সন্ত্রাসী হামলা, মন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুর এবং অগ্নিসংযোগ ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ১৬ জুন বৃহস্পতিবার পীরগঞ্জ উপজেলার ভামদায় এই ঘটনা ঘটে।

 

গত বৃহস্পতিবার রাতে হামলার সাথে জড়িত ২৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে মন্দির কর্তৃপক্ষ। মামলায় ১৪ জন আসামীর নাম উল্লেখ করা হয়েছে এবং অন্য ১৩ জন অজ্ঞাতনামা আসামী।

স্থানীয় সূত্র এবং মামলার বিবরণী থেকে জানা যায়, পীরগঞ্জ উপজেলার ভামদা শ্রী শ্রী ভবানী ঠাকুরানী মন্দিরের জমি দখলের চেষ্টা চালিয়ে আসছিলেন রফিকুল ইসলাম চৌধুরী ও পারভেজ চৌধুরী নামের দুই স্থানীয় ভূমিদস্যু।  গত বৃহস্পতিবার দুপুরে ঐ দুই ভুমিদস্যু এবং তাঁদের সন্ত্রাসী বাহিনী  ট্রাক্টর দিয়ে মন্দিরের জমি চাষ করা শুরু করে। এ সময়ে মন্দির কর্তৃপক্ষ এবং  স্থানীয় হিন্দুধর্মালম্বীরা বাঁধা দেয়ার চেষ্টা করলে তাঁদের ওপর সশস্ত্র হামলা চালায় ভূমি দস্যু বাহিনী।  এতে  নারী সহ হিন্দু সম্প্রদায়ের মোট  ৯ জন হন। ঘটনার পরপর আহত সকলকে পীরগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।  এদিকে মারামারির সময় ঐ মন্দিরের ভেতরের ৪টি প্রতিমা ভাংচুর করে সন্ত্রাসীরা। আগুন দেয়া হয় মন্দিরের পাশের একটি খড়ের ঘরে ও গাদায়।   

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মামলার আসামীদের দুটি মোটর সাইকেল উদ্ধার করে পুলিশ।  

উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজাউল করিম ও সহকারী পুলিশ সুপার আহসান হাবীব তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।  পরে জেলা প্রশাসক মাহাবুবুর রহমান ও পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পীরগঞ্জ থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম জানান, থানায় মামলা হবার পরে আসামীদের গ্রেফতার চেষ্টা চলছে। 

১৫৪ বার পঠিত

ধর্মীয় সংখ্যালঘু নির্যাতন থেকে আরও


Link copied