এবার ইউটিউব দেখে খৎনা করাতে গিয়ে আরেক শিশুর মৃত্যু

Anweshan Desk

ডেস্ক রিপোর্ট

০১ মার্চ ২০২৪, ০৭:৫৪ এএম


এবার ইউটিউব দেখে খৎনা করাতে গিয়ে আরেক শিশুর মৃত্যু

ছবি : নিহত শিশু শিহাবের স্বজনদের আহাজারি

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইউটিউবে সুন্নাতে খৎনার টিউটোরিয়াল দেখে উদ্বুদ্ধ হয়ে এক শিশুর হাত-পা ও মুখ বেঁধে খৎনা করার সময় প্রতিবেশী কিশোরের হাতে শিশুটির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। বুধবার রাতে বাগেরহাট জেলার চিতলমারী উপজেলার হিজলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। রাতেই এই ঘটনায় শিশুর মা একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

এই ঘটনায় পার্শ্ববর্তী শিবপুর গ্রামে মামার বাড়ি থেকে অভিযুক্ত হামিম শেখকে (১৭) আটক করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত হামিম হিজলা গ্রামের রমজান শেখের ছেলে।

জানা গেছে, এদিন আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে কিশোর হামিম জবানবন্দি দিয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে তার মধ্যে হাজাম হওয়ার ইচ্ছে ও সুন্নতে খৎনা দেওয়ার কৌতূহল ছিল। এজন্য সে নিয়মিত ইউটিউবের ভিডিও দেখতো। বুধবার বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে শিহাবকে ডেকে ঘরের মধ্যে নিয়ে যায় হামিম। শিহাবের হাত-পা ও মুখ বেঁধে সে একটি কাঁচি দিয়ে খৎনা করার চেষ্টা করে। এতে শিহাবের পুরুষাঙ্গ কেটে যায়। একপর্যায়ে শিহাব অচেতন হয়ে পড়লে শৌচাগারের পাশে রেখে দেয়। সেখানেই শিহাবের মৃত্যু হয়।

ছবি : সুন্নতে খৎনার বলি হওয়া সেই হাস্যজ্জল শিশু শিহাব। 

ঘটনার পর হামিম বাড়ির বাইরে ঘুরতে থাকে। অনেক খোঁজাখুঁজির পর তাকে না পেয়ে রাতে মাইকিংও করেন স্থানীয়রা। পরবর্তীতে হামিমের ঘর-সংলগ্ন শৌচাগারের পাশ থেকে শিহাবের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রাসেলুর রহমান জানান,  শিশু শিহাব বাড়ির উঠানে খেলা করার সময় খাবারের লোভ দেখিয়ে হামিমের ঘরে নিয়ে যায়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে বিকৃত মানসিকতা তৈরি হয়ে হাত-পা ও মুখ বেঁধে শিহাবকে খৎনা করে। এ সময় শিশু সিয়াম মারা যায়। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

মত প্রকাশের স্বাধীনতা থেকে আরও


Link copied